ডিজিটাল ব্যালেন্স (Digital Balance) কাকে বলে?

রসায়ন ল্যাবরেটরিতে বস্তুর ওজন মাপার জন্য ডিজিটাল পর্দা সম্বলিত যেসব ইলেকট্রনিক ব্যালেন্স ব্যবহার করা হয় তাদেরকে ডিজিটাল ব্যালেন্স (Digital Balance) বলে। ডিজিটাল ব্যালেন্সের ডিজিটাল পর্দায় বস্তুর ওজন দেখা যায়। রসায়ন ল্যাবরেটরিতে দুই ধরনের ডিজিটাল ব্যালেন্স ব্যবহার করা হয়। 2-ডিজিট ব্যালেন্স ও 4-ডিজিট ব্যালেন্স।

 

ডিজিটাল ব্যালেন্স ( 2 ডিজিট ও 4 ডিজিট) এর ব্যবহার

রসায়ন ল্যাবরেটরিতে ভর মাপার জন্য বিভিন্ন ডিজিটের ডিজিটাল ব্যালেন্স ব্যবহার করা হয়। যেমন, 2-ডিজিট, 3-ডিজিট, 4-ডিজিট প্রভৃতি। কারিকুলামে 2-ডিজিট (0.01g) এবং 4-ডিজিট (0.0001g) ডিজিটাল ব্যালেন্স অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। সাধারণ পরিমাপের জন্য 2-ডিজিটই যথেষ্ট, কিন্তু মিলিগ্রাম বা তার চেয়ে কম পরিমাপের জন্য 4-ডিজিট ডিজিটাল ব্যালেন্স প্রয়োজন হয়। 2-ডিজিট ব্যালেন্স দ্বারা 1 গ্রামের 100 ভাগের এক ভাগ এবং 4-ডিজিট ব্যালেন্স দ্বারা 1 গ্রামের 10 হাজার ভাগের এক ভাগ পর্যন্ত পরিমাপ করা যায়।

 

ডিজিটাল ব্যালেন্সে ওজন নেওয়ার নিয়ম : রাসায়নিক দ্রব্যের ভর নেবার সময় অবশ্যই উপযুক্ত পাত্র ব্যবহার করতে হবে। সরাসরি কোনো রাসায়নিক পদার্থ ব্যালেন্সে পরিমাপ করা যাবে না। কঠিন রাসায়নিক দ্রব্যের জন্য ছোট বীকার, ওয়াচ গ্লাস, মোমের আবরণযুক্ত ওয়াটার প্রুফ কাগজ ব্যবহার করা যেতে পারে। ভর নেবার সময় রাসায়নিক বস্তুটিকে অবশ্যই কক্ষ তাপমাত্রায় রাখতে হবে, চলমান কাঁচের দেওয়াল অবশ্যই বন্ধ রাখতে হবে এবং ব্যালেন্সের লেবেল কোনোক্রমেই পরিবর্তন করা যাবে না। সবসময় ব্যালেন্সের প্যান ও তার চারপাশ স্যাবল (sable) ব্রাশ দ্বারা পরিষ্কার রাখতে হবে। ব্যালেন্সের সামনের এক অংশে ডিসপ্লে থাকে এবং অপর অংশে অন/অফসহ অন্যান্য ফাংশনাল বাটন থাকে। অধিকাংশ ব্যালেন্সের অন অপশনে একবার চাপ দিয়ে কয়েক সেকেন্ড অপেক্ষা করলে ডিসপ্লেতে 0.00g বা 0.0000g প্রদর্শিত হয়। আবার কিছু ব্যালেন্সে অন/অফ চাপ দিয়ে পাশের বাটন চাপ দিলে ব্যালেন্সে প্রাথমিক পাঠ (0.00g বা 0.0000g) দৃশ্যমান হয়।

শূন্য দৃশ্যমান হয়ে স্থির হলে ব্যালেন্সের চলমান কাঁচের দেয়াল সরিয়ে প্যানের মাঝখানে ভরের পাত্র রাখতে হয় এবং দেওয়াল বন্ধ করে দৃশ্যমান স্থির ডিজিট খাতায় লিপিবদ্ধ করতে হয়। সব সময় টং, ক্লাম্প বা টিস্যু পেপার দিয়ে পাত্রটিকে স্থানান্তর করতে হয়। সরাসরি হাত দিয়ে পাত্র ধরলে ভরের নির্ভুলতা ব্যাহত হয়।

Leave a Comment