রাউটার কি? রাউটার কত প্রকার? রাউটারের সুবিধা ও অসুবিধা কি?

রাউটার (Router) হলো ছোট আকারের নেটওয়ার্কিং ডিভাইস (Networking Device), যা একাধিক নেটওয়ার্ককে সংযুক্ত করে। এটি এক নেটওয়ার্ক থেকে আরেক নেটওয়ার্কে ডাটা পাঠানোর জন্য ব্যবহৃত হয়। রাউটার ইথারনেট, টোকেন, রিং ইত্যাদি নেটওয়ার্ককে সংযুক্ত করে।

 

রাউটারের প্রকারভেদ (Types of Router)

জনপ্রিয় ও প্রচলিত রাউটারের কয়েকটি প্রকার হলো–

  • Broadband Routers (Wires router)
  • Wireless Router ( Wi-Fi routers)
  • Core Routers
  • Edge Routers
  • Inter provider broder routers

 

রাউটারের ব্যবহার (Use of Router)

রাউটার ব্যবহার করে নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণের কাজ করা হয়। ছোট ছোট নেটওয়ার্ক রাউটারের মাধ্যমে সংযুক্ত করে বড় ধরনের নেটওয়ার্ক গড়ে তোলা হয়। রাউটার নেটওয়ার্কের মধ্যে একাধিক পথ সৃষ্টি করে ভিন্ন ভিন্ন ধরনের নেটওয়ার্ক যেমন ইথারনেট, টোকেন, রিং কে সংযুক্ত করতে পারে। রাউটার একই প্রোটোকল বিশিষ্ট নেটওয়ার্ক সংযুক্ত করতে পারে।

 

রাউটারের সুবিধা (Advantages of Router)

১। ডেটা ট্রান্সমিশনের ক্ষেত্রে বাধার সম্ভাবনা কমায়।

২। ডেটা ফিল্টারিং সম্ভব হয়।

৩। বিভিন্ন ধরনের নেটওয়ার্ক যেমন ইথারনেট, টোকেন, রিং ইত্যাদিকে সংযুক্ত করতে পারে।

 

রাউটারের অসুবিধা (Disadvantages of Router)

১। রাউটারের দাম বেশি।

২। রাউটার একই প্রোটকল নেটওয়ার্ক ছাড়া সংযুক্ত হতে পারে না।

৩। কনফিগারেশন তুলনামূলক জটিল।

৪। ধীরগতিসম্পন্ন।

 

রাউটার সম্পর্কিত প্রশ্ন ও উত্তর

১৷ রাউটিং কী?

উত্তর : এক নেটওয়ার্ক থেকে আরেক নেটওয়ার্কে ডেটা পাঠানোর পদ্ধতিকে রাউটিং বলে।

২। Router শব্দটি এসেছে কোন শব্দ থেকে?

উত্তর : Route।

৩। রাউটার কী ধরনের ডিভাইস?

উত্তর : রাউটার এক ধরনের নেটওয়ার্কিং ডিভাইস।

৪। রাউটারের প্রধান কাজ কি?

উত্তর : উপাত্তকে পথ নির্দেশনা দেওয়া।

৫। কোনটি ডেটা প্যাকেট দ্বারা ডেটা আদান প্রদান করে?

উত্তর : রাউটার।

৬। কোন Deviceটি হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যারের সমন্বয়ে গঠিত?

উত্তর : Router।

৭। কোন ডিভাইসটি নির্দিষ্ট ঠিকানা অনুযায়ী তথ্য পাঠাতে পারে?

উত্তর : রাউটার।

Leave a Comment