ড্রোন কি? ড্রোন কিভাবে কাজ করে?

তথ্য প্রযুক্তি নিয়ে আমি কাজ করি, এখনকার সময়ে তথ্য প্রযুক্তির সবচেয়ে বেস্ট একটি আইটেম হচ্ছে ড্রোন। ড্রোন নিয়ে কথা না বললে কি হয়। তো আজকের আর্টিকেলের বিষয় ড্রোন সম্পর্কিত। এই আর্টিকেল মাধ্যমে যা জানা যাবে-

  • ড্রোন কি? (What is Drone?)
  • ড্রোন এর ব্যবহার (Use of Drone)
  • ড্রোন কি কি কাজে লাগে?

 

ড্রোন কি? (What is Drone in Bengali/Bangla?)

ড্রোন হচ্ছে এমন এক ধরনের উড়োজাহাজ মানে বিমান, যা পাইলট বাদে চলাচল করে বা উড়তে পারে। এর আভিধানিক অর্থ হচ্ছে গুঞ্জন। কারণ এটি যখন চলে এটা মৌমাছির গুঞ্জনের মতো শব্দ করে। একে মনুষ্যবিহীন আকাশযানও (unmanned aerial vehicle, সংক্ষেপে: UAV) বলা হয়। ড্রোনের প্রথম শর্ত হচ্ছে এটাতে ক্যামেরা থাকা লাগবে।

ড্রোনকে মূলত বানানো হয়েছে কোন জায়গায় না গিয়ে সেই জায়গার ছবি তোলার জন্য। মানে আমরা যখন কোনো জায়গায় পৌছাতে পারি না তখন ড্রোনের মাধ্যমে আমরা সেখানে পৌছিয়ে সেখানকার অবস্থান সম্পর্কে অবগত থাকতে পারি। কিন্তু বর্তমানে শুধু ছবি তোলার জন্য ড্রোন ব্যবহার করা হয় না। এটা ব্যবহার করা হচ্ছে যুদ্ধ ক্ষেত্রে, সিনেমার শুটিংয়ে ইত্যাদি ক্ষেত্রে।

ড্রোন আবিষ্কার করেন- Abraham Karem

 

ড্রোন কিভাবে কাজ করে? (How does a Drone work?)

ড্রোন যে প্রক্রিয়ায় কাজ করে তার নাম হচ্ছে UAV, যার পূর্ণ অর্থ হচ্ছে Unmanned aerial vehicle। তাছাড়া ড্রোন অনেকগুলো কমান্ড মেনে কাজ করে। যেমন- রাডার পজিশন। রাডার পজিশন বলতে এখানে বুঝানো হয়েছে রাডার পাইলটকে। এই পাইলট সক্রিয়ভাবে নিজের অবস্থান নির্ণয় করে ও কন্ট্রোল থেকে এর সম্পর্কে পজিশন অবগত করা যায়। এরপর ফ্লাইজোন প্রযুক্তি। ফ্লাইজোন প্রযুক্তি বলতে বুঝানো হয়েছে অন্য বিমান বা ড্রোন এর সাথে কোনো দূর্ঘটনা না হওয়ার জন্য যে প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। এটার কারণে বিমান এর সাথে ড্রোন এর কোনো দূর্ঘটনা হয় না। মানে ড্রোন সামনে থেকে কোনো কিছু স্পর্শ হতে পারে তা বুঝতে পারে এই ফ্লাইজোন প্রযুক্তির মাধ্যমে।

এরপর আসি FPV প্রযুক্তি। এই প্রযুক্তির নাম হচ্ছে First-person view প্রযুক্তি। ড্রোন প্রথমে মাটিতে যেই ব্যক্তিকে দেখবে তাকেই আগে টার্গেট করবে। মানে প্রথম ড্রোনকে যা দেখানো হবে বা যে ইনফরমেশন দেওয়া হবে তা গ্রহণ করে সেই অনুযায়ী কাজ করবে। এখন আমরা জানবো ড্রোন এর ব্যবহার সম্পর্কে।

 

ড্রোন এর ব্যবহার (Use of Drone)

বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি ভিডিও শ্যুটিং ডিভাইস হচ্ছে ড্রোন। ড্রোন বিভিন্ন কাজে ব্যবহার হয়ে আমাদের কাজকে আরো সহজ ও সুন্দর করে দিচ্ছে। ড্রোন স্পেশালি ভিডিওতে ব্যবহার হলেও আরো গুরুত্বপূর্ণ কাজে ব্যবহার হয়। যেমন–

  • সেতু ও ভবনের ফাটল শনাক্ত : যোগাযোগের জন্য সেতু একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যবস্থা। প্রতিবছর সেতুর গুণগত মান নির্ণয়ের জন্য প্রচুর অর্থ ও সময় ব্যয় হয়। যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি দুই বছর পর পর সেতুর কাঠামোগত মান নির্ণয় এবং সে অনুযায়ী বাজেট নির্ধারণ করা হয়। ড্রোনের সঙ্গে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা কাজে লাগিয়ে সেতুর বাইরে কাঠামোগত মান নির্ণয় করা যায়। একই সঙ্গে বিভিন্ন রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করে মরিচাসহ বিভিন্ন ছোট ফাটল মেরামত করা যায়। ড্রোনের এই যুগোপযোগী ব্যবহার সময়, খরচ ও মানুষের জীবন রক্ষা করতে পারে। একই পদ্ধতিতে বড় বড় ভবন ও রাস্তার কাঠামোগত মান নির্ণয় ও মেরামত করা যায়।
  • পাহাড় ধসের আগাম সতর্কতা : যেসব রাস্তা পাহাড় কেটে করা হয়, সেসব রাস্তায় পাহাড়ধস ও বেয়ে আসা বড় পাথর পরিবহন চালকদের জন্য মারাত্মক হুমকির কারণ। শুকনা মৌসুমে ড্রোন ব্যবহার করে এসব পাহাড়ের ছবি তুলে তা তুলনা করে প্রকৌশলীরা সম্ভাব্য পাহাড়ধস ও বেয়ে আসা পাথর পড়ার আশঙ্কা আগে থেকে বলতে পারেন।
  • যানবাহন শনাক্তকরণ ও গণনা : নতুন রাস্তা তৈরি করা, রাস্তার লেন সংখ্যা বাড়ানো, ট্রাফিক জ্যাম নিরসন ও পরিবহন খাতে বাজেটের মতো গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে প্রকৌশলীদের যানবাহনের সংখ্যা গণনার দরকার হয়। ড্রোনের সঙ্গে আধুনিক কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা যোগ করে এই কাজ খুব অল্প সময়ে সঠিকভাবে করা যায়।
  • জমি মাপার কাজে ড্রোন ব্যবহার করা হয়।
  • কৃষি কাজে : ড্রোনের সাথে সংযুক্ত ক্যামেরার মাধ্যমে একটি সুনির্দিষ্ট এলাকার চিত্র ধারণ করা যায়। বর্তমানে এই সুবিধা কাজে লাগিয়ে কৃষকরা তাদের বিশাল জমিতে ফসলের বৃদ্ধি ও রোগবালাই সনাক্ত করতে পারেন। বড় খামারিরা তাদের খামারে এটি ব্যাবহার করেন। সার-কীটনাশক ছিটানোর জন্য বিশেষ ধরনের ড্রোন বানানো হচ্ছে এখন।
  • পণ্য পরিবহনের জন্য ড্রোন ব্যবহার করা হয়।
  • সামরিক ক্ষেত্রে : এগুলো ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল এবং ভূখণ্ডগুলিতে নজরদারি করার জন্য ব্যবহৃত হয় যেখানে সৈন্যদের নিরাপদে যাওয়া প্রয়োজন। তবে এগুলি অস্ত্র হিসাবেও ব্যবহৃত হয় এবং সন্দেহভাজন জঙ্গি আস্তানায় মিসাইল হামলা করতে পারে নিখুঁতভাবে।
  • চিকিৎসা ক্ষেত্রে : চিকিৎসা ক্ষেত্রেও ড্রোনের ব্যাবহার শুরু হয়েছে। জরুরী ওষুধ-ইঞ্জেকশন এবং টিকা ডেলিভারি দেয়া যাচ্ছে খুব সহজে।
  • বিভিন্ন অবকাঠামো তৈরিতে এখন ড্রোনের মাধ্যমে জরিপ পরিচালনা করা হয়। বাণিজ্যিক কারখানা, পাহাড়ী রাস্তাঘাট, ব্রিজ এবং বাঁধ এগুলো তৈরি করার পূর্বে ড্রোন উড়িয়ে সম্পূর্ণ প্লট এর ম্যাপিং খুব সহজে করা যায়।
  • নাটক-সিনেমা এবং মিউজিক ভিডিওতেও এখন ড্রোনের মাধ্যমে চিত্র ধারণ করা হয়। ফটোগ্রাফাররা UAV-গুলি বিস্তৃত এরিয়াল ছবি তোলার জন্য ব্যবহার করে।
  • করোনা ভাইরাস মহামারীর সময়ে কোয়ারানটাইন এবং সামাজিক দূরত্ব বাস্তবায়ন করতে; এবং চিকিৎসা সহায়তা সরবরাহ করতে, ড্রোন এর ভূমিকা অনস্বীকার্য।

 

ড্রোন সম্পর্কিত প্রশ্ন ও উত্তর–

১। ড্রোন এর আভিধানিক অর্থ কি?

উত্তর : গুঞ্জন।

ড্রোন কি? ড্রোন কিভাবে কাজ করে?

One thought on “ড্রোন কি? ড্রোন কিভাবে কাজ করে?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to top