লিপিড (Lipid) কি? লিপিডের শ্রেণীবিভাগ, উৎস এবং বৈশিষ্ট্য

লিপিড কি? (What is Lipid in Bengali/Bangla?)

লিপিড একটি জৈব রাসায়নিক পদার্থ, যা কার্বন, হাইড্রোজেন ও অক্সিজেন নিয়ে গঠিত। এগুলো সাধারণত স্নেহ পদার্থ নামে পরিচিত। মাছ, মাংসের চর্বি, সরিষার তেল, সয়াবিন তেল ইত্যাদিতে লিপিড বিদ্যমান থাকে।

গ্রিক শব্দ ‘Lipos’-এর অর্থ হলো ফ্যাট।

 

লিপিডের শ্রেণীবিভাগ (Classification of lipid)

গঠন প্রকৃতি অনুসারে লিপিড প্রধানত ৩ প্রকার-

(১) সরল লিপিড (Simple lipids) : যে সব লিপিডের বিশ্লেষণে স্নেহ পদার্থ ছাড়া আর কিছু পাওয়া যায় না সেগুলোকে সরল লিপিড বলে। সরল লিপিড দুরকমঃ (ক) স্নেহদ্রব্য ও (খ) মোম।

(২) যৌগিক লিপিড (Compound lipids)

(৩) উদ্ভূদ বা উৎপাদিত লিপিড (Derived lipids)

আণবিক গঠন অনুসারে লিপিডকে প্রধানত পাঁচ ভাগে ভাগ করা হয়। যেমন–

(১) ট্রাইগ্লিসারাইড বা নিউট্রাল লিপিড

(২) ফসফোলিপিড

(৩) গ্লাইকোলিপিড

(৪) টারপিনয়েড

(৫) মােম।

(১) ট্রাইগ্লিসারাইড বা নিউট্রাল লিপিড : তিন অনু ফ্যাটি এসিড এবং এক অনু গ্লিসারল সহযােগে গঠিত হয় ট্রাইগ্লিসারাইড। একে আবার দু’ভাগে ভাগ করা যায়। যেমন- (১) চর্বি ও (২) তেল।

(২) ফসফোলিপিড : সরল লিপিডের সাথে যদি ফসফেট সংযুক্ত থাকে তাকে ফসফোলিপিড বলে। যেমন- লেসিথিন, সেফালিন, প্লাজমামেমব্রেন ইত্যাদি।

 

লিপিডের উৎস (Sources of lipid)

প্রাণিজ চর্বি, মাখন, ঘি, ইত্যাদি লিপিডের প্রাণিজ উৎস। কিছু উদ্ভিদের বীজ যেমন- সয়াবিন, সরিষা, তিল, তিসি, সূর্যমুখী, বাদাম, পাম, নারকেল, জলপাই ইত্যাদি লিপিডের উদ্ভিজ্জ উৎস।

 

লিপিডের বৈশিষ্ট্য (Characteristics of lipid)

লিপিড পানিতে অদ্রবণীয়; এটি বর্ণ, স্বাদ ও গন্ধহীন। ক্লোরোফর্ম, অ্যাসিটোন, বেঞ্জিন ইত্যাদিতে লিপিড দ্রবীভূত হয়। সাধারণ উষ্ণতায় যেসব লিপিড কঠিন অবস্থায় থাকে তাদের স্নেহদ্রব্য বা ফ্যাট বলে এবং যেসব লিপিড তরল অবস্থায় থাকে সেগুলোকে তেল বলে। লিপিড ফ্যাটি এসিডের এস্টার হিসেবে বিরাজ করে। লিপিডের আণবিক ওজন বাড়ার সাথে সাথে গলনাঙ্ক বৃদ্ধি পায়। আর্দ্র বিশ্লেষণে লিপিড ফ্যাটি এসিড ও গ্লিসারলে পরিণত হয়। লিপিড পানির চেয়ে হালকা।

 

চর্বি ও লিপিডের মধ্যে পার্থক্য কি? (What is the difference between fat and lipid?)

চর্বি ও লিপিডের মধ্যে পার্থক্য নিচে তুলে ধরা হলো–

চর্বি

১. চর্বি হলো সাধারণ তাপমাত্রায় শক্ত ও কঠিন সম্পৃক্ত ফ্যাটি এসিড।

২. এরা পানিতে মিশে না।

৩. এরা সাধারণত কঠিন অবস্থায় থাকে।

লিপিড

১. লিপিড একটি জৈব রাসায়নিক পদার্থ যা কার্বন, হাইড্রোজেন ও অক্সিজেনের সমন্বয়ে গঠিত।

২. এরা পানিতে মিশতে পারে।

৩. এরা কঠিন ও তরল দুই অবস্থায় থাকতে পারে।

 

এ সম্পর্কিত আরও কিছু প্রশ্ন ও উত্তরঃ–

১। রাসায়নিক প্রকৃতি অনুসারে লিপিড কয় প্রকার ও কী কী?

উত্তরঃ রাসায়নিক প্রকৃতি অনুসারে লিপিড তিন প্রকার। যথা- সরল লিপিড (চর্বি, তেল ইত্যাদি), যৌগিক লিপিড (ফসফোলিপিড, গ্লাইকোলিপিড ইত্যাদি), উদ্ভুত লিপিড (স্টেরয়েড, রাবার ইত্যাদি)।

Leave a Comment